রোববার   ১৬ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৩ ১৪২৬   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

১৯১

শিবিরের সাবেক সভাপতি একই সাথে দুই কলেজে অধ্যক্ষ পদে বহাল

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০১৮  

এক যুগ ধরে মেহেরপুর জেলা শিবির এর সাবেক সভাপতি ও মেহেরপুরের এক জামায়াত নেতা একই মাথে দুই কলেজে অধ্যক্ষ পদে চাকুরীতে বহাল রয়েছে। আওয়ামীলীগ সরকার পতন করার মেহেরপুরের আবরোধের রূপকার কয়েকটি মামলার আসামী হলেও এক আওয়ামী লীগ নেতার আশীর্বাদে জামিনে বহাল তবীয়তে রয়েছে এবং একই মাথে দুই কলেজে অধ্যক্ষ পদে চাকুরীতে করে যাচ্ছে।

গত বিএনপি সরকার আমলের প্রথম দিকে মেহেরপুর জেলা জামায়াতে ইসলামের উদ্দ্যোগে মেহেরপুর শহরের প্রান কেন্দ্রে জিনিয়াস ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজ এবং মুজিবনগর উপজেলার রতনপুরে আল নুর টেকনিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। সেই প্রতিষ্টালগ্নে থেকে মেহেরপুর জেলা শিবির এর সাবেক সভাপতি ও মেহেরপুর জামায়াত ইসলামের সূরা সদস্য আল আমীন ইসলাম বকুল একইসাথে দুই কলেজে অধ্যক্ষ পদে চাকুরীতে করে যাচ্ছে। গত ২০১২ সালে মেহেরপুর -১ আসনের সাবেক এমপি মোঃ জয়নাল আবেদীন ওভার টেক করে অলৌকিক তদবিরে  মুজিবনগর উপজেলার রতনপুরে  আল নুর টেকনিক্যাল কলেজ এমপিও  ভুক্ত করে। এরপর মেহেরপুরে আন্দোলনের ঝড় উছেছিল। এক অনুসন্ধানে ঢাকা টেকনিকাল বোর্ড অনুন্ধানে মুজিবনগর উপজেলার রতনপুরে আল নুর টেকনিক্যাল কলেজটি জামায়াতের ট্রাষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে চিহ্নিত হয়। এর ফলে সরকার মুজিবনগর উপজেলার রতনপুরে আল নুর টেকনিক্যাল কলেজ এমপিও ভুক্ত বাতিল করে দেয়। এত কিছুর পরেও মেহেরপুরের এক আওয়ামী লীগ নেতার আর্শিবাদে বহাল তবীয়তে এক যুগ ধরে মেহেরপুরের এই জামায়াত নেতা একই মাথে দুই কলেজে অধ্যক্ষ পদে চাকুরী করে যাচ্ছে। মেহেরপুর শহরের প্রান কেন্দ্রে জিনিয়াস ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজ যশোর শিক্ষা বোর্ডের রেজিষ্ট্রশনে এমপিও হীন অবস্থায় পরিচালিত হচ্ছে।


এ ব্যপারে মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের গত ২৮ নভেম্বর ২০১০ সালের সহকারী পরিচালক মোঃ জসিম উদ্দীন স্বাক্ষরিত এক পরিপত্রে বলা হয়েছে, ৯ ধারায় বলা হয়েছে যে, কোন শিক্ষক কর্মচারী একসাথে দুই প্রতিষ্ঠানে (এমপিও /এমপিও হীন ) যে কোন ধরনের প্রতিষ্ঠানে চাকুরীতে কর্মরত থাকলে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মেহেরপুর বার্তা
মেহেরপুর বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর