সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৭ ১৪২৬   ২৩ মুহররম ১৪৪১

২৭৩

কুরআনে বর্ণিত বিশেষ কয়েকটি মুনাজাত

ইসলামি চিন্তা

প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০১৯  

আল্লাহর মুখাপেক্ষী হওয়া এবং তার নৈকট্য লাভ করা ছাড়া মানুষের কোনো উপায় নেই। আর দুয়া হলো আল্লাহর নৈকট্য লাভের বিশেষ বাহন ও মাধ্যম। আল্লাহর কাছে চাওয়ার মাধ্যমে মানুষ আল্লাহর নিকটবর্তী হয়। মানুষ তার প্রতিপালকের ইবাদত করে, উদ্দেশ্যে উপনীত হয়, তার সন্তুষ্টি লাভ করে।

কুরআনে বর্ণিত এমন বিশেষ কয়েকটি দুআ শিখে নেই:

১. হে আমাদের রব! আমরা নিজেদের প্রতি জুলুম করেছি। যদি তুমি আমাদেরকে ক্ষমা না কর এবং আমাদের প্রতি রহম না কর, তাহলে অবশ্যই আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাব। (সূরা আরাফ-২৩)

২. হে আমাদের রব! আমাদের সকল গুনাহ মাফ কর এবং আমাদের সকল দোষ-ত্রুটি দূর করে দাও। আর আমাদেরকে মৃত্যু দাও নেককার লোকদের সঙ্গে। (সূরাঃ আলে ইমরান-১৯৩)

৩. হে আমাদের রব! আমাকে, আমার পিতা-মাতাকে এবং সমস্ত মুমিনকে ক্ষমা কর, যেদিন হিসাব কায়েম হবে। (সূরা ইবরাহীম-৪১)

৪. হে আমাদের রব! তাঁদের (পিতা-মাতা) উভয়ের প্রতি রহম করা, যেমন তাঁরা শৈশবে আমাকে লালন-পালন করেছেন। (সূরা বানী ইসরাঈল-২৪)
৫. হে আমাদের রব! আমাদেরকে হেদায়েত করার পর তুমি আমাদের অন্তরসমূহকে বক্র করে দিও না। তুমি তোমার নিকট থেকে আমাদেরকে অনুগ্রহ কর। তুমিই সব কিছুর দাতা। (সূরা আলে ইমরান-৮)

৬. হে আমাদের রব! আমাকে এবং আমার সন্তানদেরকে নামায কায়েমকারী বানাও। (সূরা ইবরাহীম-৪০)

৭. হে আমাদের পরওয়ারদিগার! আমাদের স্ত্রীদের থেকে এবং আমাদের সন্তানাদি থেকে আমাদেরকে শান্তি দান কর। আর মুত্তাকীদের জন্য আমাদেরকে নেতা (আদর্শ স্বরূপ) বানিয়ে দাও। (সূরা ফুরকান-৭৪)

৮. হে আমাদের রব! তুমি দুনিয়াতেও আমাদেরকে কল্যান দান কর এবং আখিরাতেও। আর জাহান্নামের আগুন থেকে আমাদেরকে রক্ষা কর। (সূরা বাকারা-২০১)

৯. হে আমাদের রব! তুমি আমাদেরকে দান কর যা তুমি ওয়াদা করেছ তোমার রসূলগণের মাধ্যমে এবং কিয়ামতের দিন তুমি আমাদেরকে অপমানিত করো না, নিশ্চয় তুমি ওয়াদা খেলাফ কর না। (সূরা আলে ইমরান-১৯৪)

১০. হে আমাদের পালনকর্তা! আমার বক্ষ উন্মোচন করে দাও (মনোবল বৃদ্ধি করে দাও, জ্ঞান বহন করার উপযোগী বানিয়ে দাও এবং দ্বীনী প্রচার কার্যে হীনম্মন্যতা এবং বিরোধিতার কারনে সৃষ্ট সংকোচবোধ দূর করে দাও।) আর আমার কাজ সহজ করে দাও এবং আমার জিহ্বা থেকে জড়তা দূর করে দাও, যাতে লোকেরা আমার কথা সহজে বুঝতে পারে। (সূরা তাহা-১৫-২৮)

১১. হে আমাদের রব! তুমি আমার ইলম বৃদ্ধি করে দাও। (সূরা তাহা-১১৪)

১২. হে আমাদের রব! আমাদেরকে ক্ষমা করে এবং আমাদের সেই ভাইদেরকেও, যারা আমাদের পূর্বে ঈমান এনেছেন। আর ঈমানদারদের প্রতি আমাদের অন্তরে যেন ঈর্ষা না হয়। হে আমাদের রব! নিশ্চয় তুমি বড় স্নেহশীল, করুণাময়। (সূরা হাশর-১০)

১৩. হে আমাদের রব! তুমি ক্ষমা কর এবং রহম কর, তুমি তো শ্রেষ্ঠ দয়ালু। (সূরা মু’মিনুন- ১১৮)

১৪. হে আমাদের রব! আমাদের থেকে জাহান্নামের শাস্তি হটিয়ে দাও, তার শাস্তি তো নিশ্চিত ধবংস। (সূরা ফুরকান-৬৫)

১৫. হে আমাদের প্রতিপালক! আমাকে জ্ঞান দান কর এবং আমাকে নেককার লোকদের অন্তর্ভুক্ত কর। (সূরা শুয়ারা -৮৩)

১৬. হে আমাদের রব! আমাকে জালেম সম্প্রদায় থেকে রক্ষা কর। (সূরা কাসাস-২১)

১৭. হে আমাদের প্রতিপালক! ফ্যাসাদী লোকদের মোকাবেলায় তুমি আমাকে সাহায্য কর। (সূরা আনকাবূত- ৩০)

১৮. হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদেরকে জালেম লোকদের উৎপীড়নের পাত্র বানিও না এবং তোমার রহমতে কাফের সম্প্রদায় থেকে আমাদেরকে রক্ষা কর। (সূরা ইউসূফ-৮৫)

১৯. হে আমাদের প্রতিপালক! তুমি আমাদের মাঝে এবং আমাদের জাতির মাঝে সঠিক ফয়সালা করে দাও! তুমিই সর্বোত্তম ফয়সালাকারী। (সূরা আ’রাফ-৮৯)

২০. হে আমাদের প্রতিপালক! তুমি আমাদের থেকে কবূল কর, নিশ্চয়ই তুমি সবকিছু শুনতে পাও, সবকিছু জান। (সূরা বাকারা-১২৭)

আল্লাহ আমাদেরকে আমল করার তৌফিক দান করুন

(সূত্রঃ আহকামে যিন্দেগী । পৃষ্ঠা নং- ২৭৫-২৭৮)

মেহেরপুর বার্তা
মেহেরপুর বার্তা